ঢাকা ০৪:০০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আত্মবিশ্বাসী আফগানিস্তানের সামনে সতর্ক বাংলাদেশ

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০১:২৬:২৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • / ৩৭৯ বার পড়া হয়েছে

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হার দিয়ে এশিয়া কাপ শুরু করায় ইতোমধ্যেই খাদের কিনারায় নিজেদের নিয়ে দাঁড় করিয়েছে বাংলাদেশ। অবস্থাটা এখন বললেও খুব একটা ভুল হবে না যে, ইতোমধ্যেই খাদে পড়েই গেছে বাংলাদেশ। অনেক কষ্টে কিছু একটা আকড়ে ধরে ঝুলে রয়েছে এশিয়া কাপের মিশনে।

আফগানিস্তানের বিপক্ষে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে হারলেই সব আশা শেষ বাংলাদেশের। পা হড়কে আফগানদের বিপক্ষে পরাজিত হলেও টাইগারদের হারিয়ে যেতে হবে খাদের অতলে। নিতে হবে এশিয়া কাপ থেকে বিদায়।

এমনই এক পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে রোববার (৩ সেপ্টেম্বর) আফগানিস্তানের বিপক্ষে এশিয়া কাপে নিজেদের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার মিশনে নামতে যাচ্ছে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। বাংলাদেশ সময় বেলা সাড়ে তিনটায় লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে গড়াবে ম্যাচটি।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাজেভাবে হারার কারণে আফগানিস্তানের বিপক্ষে জয় ভিন্ন পথ খোলা নেই বাংলাদেশের। কেননা এই ম্যাচ হারলেই বি-গ্রুপ থেকে সুপার ফোর নিশ্চিত হয়ে যাবে শ্রীলঙ্কা ও আফগানিস্তানের। তখন লঙ্কান ও আফগানদের বিপক্ষে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচটি হয়ে যাবে কেবলই নিয়মরক্ষার ম্যাচ।

তবে জিতলেও যে খুব একটা স্বস্তিতে থাকবে বাংলাদেশ তেমনটা কিন্তু নয়। কেননা, তখন বাংলাদেশের প্রার্থনা করতে হবে শ্রীলঙ্কা-আফগানিস্তান ম্যাচে লঙ্কানদের জয়ের জন্য। যদি কোনোভাবে সেই ম্যাচে আফগানিস্তান জিতে যায় তাহলে হিসেব হবে রান রেটের।

সেক্ষেত্রে এশিয়া কাপ থেকে ছিটকে যাওয়ার সম্ভাবনা কিছুটা হলেও থাকবে টাইগারদের। তবে সেই মারপ্যাচে যেতে হলে আগে আফগানদের বিপক্ষে বড় ব্যবধানে জিততে হবে সাকিব অ্যান্ড কোংদের।

তাই বলাই চলে আফগানদের বিপক্ষে রীতিমতো এক অগ্নিপরীক্ষা দিতে হবে চান্ডিকা হাথুরুসিংহে ও তার দলকে।

যেহেতু পচা শামুকেই বাংলাদেশের পা কাটে, সে কারণে আফগানিস্তানকে নিয়ে বেশ সতর্ক অবস্থায় রয়েছে বাংলাদেশ। ম্যাচপূর্ব সংবাদসম্মেলনে টাইগার কোড চান্ডিকা হাথুরুসিংহে বলেন, ‘আফগানিস্তানের বোলিং আক্রমণ বিশ্বের অন্যতম সেরা। নিশ্চিতভাবে এটা একটা চ্যালেঞ্জ। কিন্তু তাদের সঙ্গে আমরা সম্প্রতি খেলেছি। যেভাবে খেলেছি এখানে কিছু সফলতাও ছিল। এটা নির্ভর করছে ওই দিনে আপনি কীভাবে পারফর্ম করছেন। আমরা ভালোভাবেই জানি কী চ্যালেঞ্জ নিতে হবে আমাদের। আর এই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার জন্য আমরা খুবই সতর্ক আছি।’

এদিকে বাংলাদেশের বিপক্ষে জয় দিয়ে এশিয়া কাপের মিশন শুরু করতে বেশ আত্মবিশ্বাসী আফগান অধিনায়ক হাশমতউল্লাহ শাহিদি। যার প্রতিফলন মেলে ম্যাচপূর্ব সংবাদসম্মেলনেই।

শাহিদি বলেন, ‘আমি বেশ আশাবাদী। কারণ দল হিসেবে আমরা আগের থেকে শক্তিশলী। আমরা এই দলের সঙ্গে দুই বছর ধরে কাজ করছি। দেখুন, আমাদের দলে অনেক তরুণ আছে, যারা কিনা প্রতিভাবান। আমি বিশ্বাস করি আমরা আগে যা করেছি তার চেয়ে ভালো পারফরম্যান্স আমরা করব।’

এখন পর্যন্ত আফগানিস্তানের বিপক্ষে ১৪টি ওয়ানডে খেলেছে বাংলাদেশ। এর ভেতর বাংলাদেশ এগিয়ে থাকলেও ব্যবধানটা খুব একটা বেশি না। টাইগারদের আট জয়ের বিপরীতে আফগানদের জয় ৬ ম্যাচে।

বাংলাদেশ আফগানদের বিপক্ষে দ্বৈরথে এগিয়ে আছে এশিয়া কাপের ম্যাচেও। এশিয়া কাপে ওয়ানডে ফরম্যাটে এখন পর্যন্ত আফগানিস্তানের সঙ্গে তিনবার দেখা হয়েছে লাল-সবুজের প্রতিনিধিদের। এই তিন দেখায় দুইবারই শেষ হাসি হেসেছে টাইগাররা।

তবে দুই দলের সবশেষ দ্বিপাক্ষিক সিরিজের পরিসংখ্যানটা এগিয়ে রাখছে আফগফানদের। গেল জুলাইয়ে ঘরের মাঠে আফগানদের বিপক্ষে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ হেরেছিল বাংলাদেশ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আত্মবিশ্বাসী আফগানিস্তানের সামনে সতর্ক বাংলাদেশ

আপডেট সময় : ০১:২৬:২৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হার দিয়ে এশিয়া কাপ শুরু করায় ইতোমধ্যেই খাদের কিনারায় নিজেদের নিয়ে দাঁড় করিয়েছে বাংলাদেশ। অবস্থাটা এখন বললেও খুব একটা ভুল হবে না যে, ইতোমধ্যেই খাদে পড়েই গেছে বাংলাদেশ। অনেক কষ্টে কিছু একটা আকড়ে ধরে ঝুলে রয়েছে এশিয়া কাপের মিশনে।

আফগানিস্তানের বিপক্ষে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে হারলেই সব আশা শেষ বাংলাদেশের। পা হড়কে আফগানদের বিপক্ষে পরাজিত হলেও টাইগারদের হারিয়ে যেতে হবে খাদের অতলে। নিতে হবে এশিয়া কাপ থেকে বিদায়।

এমনই এক পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে রোববার (৩ সেপ্টেম্বর) আফগানিস্তানের বিপক্ষে এশিয়া কাপে নিজেদের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার মিশনে নামতে যাচ্ছে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। বাংলাদেশ সময় বেলা সাড়ে তিনটায় লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে গড়াবে ম্যাচটি।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাজেভাবে হারার কারণে আফগানিস্তানের বিপক্ষে জয় ভিন্ন পথ খোলা নেই বাংলাদেশের। কেননা এই ম্যাচ হারলেই বি-গ্রুপ থেকে সুপার ফোর নিশ্চিত হয়ে যাবে শ্রীলঙ্কা ও আফগানিস্তানের। তখন লঙ্কান ও আফগানদের বিপক্ষে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচটি হয়ে যাবে কেবলই নিয়মরক্ষার ম্যাচ।

তবে জিতলেও যে খুব একটা স্বস্তিতে থাকবে বাংলাদেশ তেমনটা কিন্তু নয়। কেননা, তখন বাংলাদেশের প্রার্থনা করতে হবে শ্রীলঙ্কা-আফগানিস্তান ম্যাচে লঙ্কানদের জয়ের জন্য। যদি কোনোভাবে সেই ম্যাচে আফগানিস্তান জিতে যায় তাহলে হিসেব হবে রান রেটের।

সেক্ষেত্রে এশিয়া কাপ থেকে ছিটকে যাওয়ার সম্ভাবনা কিছুটা হলেও থাকবে টাইগারদের। তবে সেই মারপ্যাচে যেতে হলে আগে আফগানদের বিপক্ষে বড় ব্যবধানে জিততে হবে সাকিব অ্যান্ড কোংদের।

তাই বলাই চলে আফগানদের বিপক্ষে রীতিমতো এক অগ্নিপরীক্ষা দিতে হবে চান্ডিকা হাথুরুসিংহে ও তার দলকে।

যেহেতু পচা শামুকেই বাংলাদেশের পা কাটে, সে কারণে আফগানিস্তানকে নিয়ে বেশ সতর্ক অবস্থায় রয়েছে বাংলাদেশ। ম্যাচপূর্ব সংবাদসম্মেলনে টাইগার কোড চান্ডিকা হাথুরুসিংহে বলেন, ‘আফগানিস্তানের বোলিং আক্রমণ বিশ্বের অন্যতম সেরা। নিশ্চিতভাবে এটা একটা চ্যালেঞ্জ। কিন্তু তাদের সঙ্গে আমরা সম্প্রতি খেলেছি। যেভাবে খেলেছি এখানে কিছু সফলতাও ছিল। এটা নির্ভর করছে ওই দিনে আপনি কীভাবে পারফর্ম করছেন। আমরা ভালোভাবেই জানি কী চ্যালেঞ্জ নিতে হবে আমাদের। আর এই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার জন্য আমরা খুবই সতর্ক আছি।’

এদিকে বাংলাদেশের বিপক্ষে জয় দিয়ে এশিয়া কাপের মিশন শুরু করতে বেশ আত্মবিশ্বাসী আফগান অধিনায়ক হাশমতউল্লাহ শাহিদি। যার প্রতিফলন মেলে ম্যাচপূর্ব সংবাদসম্মেলনেই।

শাহিদি বলেন, ‘আমি বেশ আশাবাদী। কারণ দল হিসেবে আমরা আগের থেকে শক্তিশলী। আমরা এই দলের সঙ্গে দুই বছর ধরে কাজ করছি। দেখুন, আমাদের দলে অনেক তরুণ আছে, যারা কিনা প্রতিভাবান। আমি বিশ্বাস করি আমরা আগে যা করেছি তার চেয়ে ভালো পারফরম্যান্স আমরা করব।’

এখন পর্যন্ত আফগানিস্তানের বিপক্ষে ১৪টি ওয়ানডে খেলেছে বাংলাদেশ। এর ভেতর বাংলাদেশ এগিয়ে থাকলেও ব্যবধানটা খুব একটা বেশি না। টাইগারদের আট জয়ের বিপরীতে আফগানদের জয় ৬ ম্যাচে।

বাংলাদেশ আফগানদের বিপক্ষে দ্বৈরথে এগিয়ে আছে এশিয়া কাপের ম্যাচেও। এশিয়া কাপে ওয়ানডে ফরম্যাটে এখন পর্যন্ত আফগানিস্তানের সঙ্গে তিনবার দেখা হয়েছে লাল-সবুজের প্রতিনিধিদের। এই তিন দেখায় দুইবারই শেষ হাসি হেসেছে টাইগাররা।

তবে দুই দলের সবশেষ দ্বিপাক্ষিক সিরিজের পরিসংখ্যানটা এগিয়ে রাখছে আফগফানদের। গেল জুলাইয়ে ঘরের মাঠে আফগানদের বিপক্ষে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ হেরেছিল বাংলাদেশ।