ঢাকা ০৮:৪২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
হিলিতে আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগের ২১ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন বিরামপুরে ধান, চাল ও গম ক্রয়ের শুভ উদ্বোধন করেন শিবলী সাদিক এমপি হোটেলে খেতে গিয়ে দায়িত্ব হারালেন প্রিজাইডিং কর্মকর্তা পাঁচবিবিতে খরায় লিচুর ফলন হ্রাস,বাগান মালিকের মাথায় হাত পাঁচবিবিতে ট্রাইকো কম্পোস্ট সার বাজারজাতকরণে মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত আত্মসমর্পণের পর কারাগারে বিএনপি নেতা ইশরাক দুর্ঘটনার কবলে ইরানের প্রেসিডেন্টকে বহনকারী হেলিকপ্টার অবৈধ জুস তৈরির কারখানায় অভিযান, ১০ লাখ টাকা জরিমানা দেশ এখন মগের মুল্লুকে পরিণত হয়েছে : মির্জা ফখরুল ‘ভারত-চীনকে যুক্ত করতে পারলেই রোহিঙ্গা সংকট সমাধান সম্ভব’

জমিজমা নিয়ে বিরোধে ভাতিজার শাবলের আঘাতে চাচা খুন

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ১০:৫৬:১০ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • / ৩২৯ বার পড়া হয়েছে

রফিকুল ইসলাম, তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে জমি জমার বিরোধকে কেন্দ্র করে ভাতিজার শাবলের আঘাতে খুন হয়েছেন চাচা মোসলেম উদ্দিন (৭০)। এ সময় নিহতের আরো দুই ভাই গুরুতর আহত হয়েছেন। তাঁদেরকে মূমুর্ষ অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
শনিবার ভোর পাঁচটার দিকে উপজেলার সগুনা ইউনিয়নের দক্ষিন পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।
নিহত মোসলেম উদ্দিন ওই গ্রামের মৃত সেকেন্দার আলীর ছেলে। পাশাপাশি তিনি সগুনা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ছিলেন।
বিষয়টি তাড়াশ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. নূরে আলম নিশ্চিত করেছেন। সকাল ১০ টার দিকে তিনি জানিয়েছেন, ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, দীর্ঘদিন যাবৎ চরকুশাবাড়ি গ্রামের সেকেন্দার আলীর তিন ছেলের সাথে তার ভাতিজা মো. জালাল উদ্দিন (৩৫) ’র জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলছিল। তারই ধারা বাহিকতায় ভোরে নিহত মোসলেম উদ্দিনের দুই ভাই শামসুল হক ও মফিদুল ইসলাম মসজিদে ফজরের নামাজ আদায় করতে যান। সেখানে আকস্মিক ভাবে ভাতিজা জালাল উদ্দিন উপস্থিত হয়ে ওই দুই চাচাকে শাবল দিয়ে আঘাত করতে থাকেন। আর আঘাতে ওই দুই চাচা গুরুতর আহত হন। পরে তাঁদেরকে ফেলে রেখে জালাল উদ্দিন বাড়ির দিকে যেতে থাকেন। পথেমধ্যে আরেক চাচা মোসলেম উদ্দিনের সাথে তার দেখা হয়। এতে ভাতিজা ক্ষীপ্ত হয়ে শাবল দিয়ে চাচা মোসলেম উদ্দিনকেও উপর্যপরি আঘাত করতে থাকেন। এতে করে ঘটনাস্থলেই চাচা মোসলেম উদ্দিন মারা যান।
এ দিকে স্থানীয়রা বিষয়টি টের পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে গুরুতর আহত শামসুল হক (৫৫) ও মফিদুল ইসলাম (৪৫) উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। পাশাপাশি পুলিশকে খবর দেন।
পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছে ঘাতক জালাল উদ্দিন (৩৫) কে আটক করেন এবং মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে।
এ প্রসঙ্গে তাড়াশ থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) মো.শহিদুল ইসলাম জানান, তিনি ঘটনাস্থলে রয়েছেন। থানায় ফিরে এ বিষয়ে মামলা নেওয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

জমিজমা নিয়ে বিরোধে ভাতিজার শাবলের আঘাতে চাচা খুন

আপডেট সময় : ১০:৫৬:১০ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২৩

রফিকুল ইসলাম, তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে জমি জমার বিরোধকে কেন্দ্র করে ভাতিজার শাবলের আঘাতে খুন হয়েছেন চাচা মোসলেম উদ্দিন (৭০)। এ সময় নিহতের আরো দুই ভাই গুরুতর আহত হয়েছেন। তাঁদেরকে মূমুর্ষ অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
শনিবার ভোর পাঁচটার দিকে উপজেলার সগুনা ইউনিয়নের দক্ষিন পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।
নিহত মোসলেম উদ্দিন ওই গ্রামের মৃত সেকেন্দার আলীর ছেলে। পাশাপাশি তিনি সগুনা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ছিলেন।
বিষয়টি তাড়াশ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. নূরে আলম নিশ্চিত করেছেন। সকাল ১০ টার দিকে তিনি জানিয়েছেন, ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, দীর্ঘদিন যাবৎ চরকুশাবাড়ি গ্রামের সেকেন্দার আলীর তিন ছেলের সাথে তার ভাতিজা মো. জালাল উদ্দিন (৩৫) ’র জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলছিল। তারই ধারা বাহিকতায় ভোরে নিহত মোসলেম উদ্দিনের দুই ভাই শামসুল হক ও মফিদুল ইসলাম মসজিদে ফজরের নামাজ আদায় করতে যান। সেখানে আকস্মিক ভাবে ভাতিজা জালাল উদ্দিন উপস্থিত হয়ে ওই দুই চাচাকে শাবল দিয়ে আঘাত করতে থাকেন। আর আঘাতে ওই দুই চাচা গুরুতর আহত হন। পরে তাঁদেরকে ফেলে রেখে জালাল উদ্দিন বাড়ির দিকে যেতে থাকেন। পথেমধ্যে আরেক চাচা মোসলেম উদ্দিনের সাথে তার দেখা হয়। এতে ভাতিজা ক্ষীপ্ত হয়ে শাবল দিয়ে চাচা মোসলেম উদ্দিনকেও উপর্যপরি আঘাত করতে থাকেন। এতে করে ঘটনাস্থলেই চাচা মোসলেম উদ্দিন মারা যান।
এ দিকে স্থানীয়রা বিষয়টি টের পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে গুরুতর আহত শামসুল হক (৫৫) ও মফিদুল ইসলাম (৪৫) উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। পাশাপাশি পুলিশকে খবর দেন।
পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছে ঘাতক জালাল উদ্দিন (৩৫) কে আটক করেন এবং মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে।
এ প্রসঙ্গে তাড়াশ থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) মো.শহিদুল ইসলাম জানান, তিনি ঘটনাস্থলে রয়েছেন। থানায় ফিরে এ বিষয়ে মামলা নেওয়া হবে।