ঢাকা ০৩:৪১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

তাড়াশে পারিবারিক কলহে পুত্রের হাতে পিতার মৃত্যু

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৪:১৪:৪৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ৯ জুলাই ২০২৩
  • / ৪২৪ বার পড়া হয়েছে

রফিকুল ইসলাম, তাড়াশ ( সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি:

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে পারিবারিক কলহে পুত্রের হাতে পিতার মর্মান্তিক মুত্যু হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে  শনিবার উপজেলার সদগুনা ইউনিয়নের বিন্নাবাড়ী গ্রামে। মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সদগুনা ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ জুলফিকার আলী ভুট্ট।

পারিবারিক ও প্রতিবেশিরা জানান, উপজেলার সদগুনা ইউনিয়নের বিন্নাবাড়ী গ্রামের মোঃ জমিন মন্ডলের ছেলে মোঃ তোফাজ্জল হোসেন তোফা মন্ডল (৫৪) এর দুই স্ত্রী নিয়ে সংসার করতেছিলেন । গত ৭ জুলাই শুক্রবার রাতে ছোট স্ত্রীর ঘর থেকে বড় স্ত্রী রেজদা খাতুনের ঘরে রাত্রি যাপনের জন্য গেলে দু’ জনের মধ্যে বাকবিতান্ড শুরু হয় । বাকবিতান্ড চরম পর্যায় পৌছালে স্বামী ক্ষীপ্ত হয়ে স্ত্রী রেজদা খাতুনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে পায়ে আঘাত কবে। এ সময় তার চিৎকারে ছেলে মোঃ বাবু মন্ডল শাকিল (১৮) এগিয়ে আসে। মায়ের শরীরে রক্ত দেখে ছেলে পিতার পেটে ওই ধারালো অস্ত্র দিয়েই ২/৩ টা আঘাত করে মারাত্মক আহত করেন। পরে প্রতিবেশীরা এসে তাদেরকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য একই গাড়ীতে রাজশাহী মেডিকেল হাসপাতালে নিয়ে যান।
এ ঘটনায় ৮ জুলাই শনিবার রাতে রাজশাহী মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তোফাজ্জল হোসেন তোফা মন্ডল মারা যান। বর্তমানে ছেলে বাবু মন্ডল পলাতক রয়েছে ।
এ ব্যাপারে থানা অফিসার ইনচার্জ মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

তাড়াশে পারিবারিক কলহে পুত্রের হাতে পিতার মৃত্যু

আপডেট সময় : ০৪:১৪:৪৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ৯ জুলাই ২০২৩

রফিকুল ইসলাম, তাড়াশ ( সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি:

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে পারিবারিক কলহে পুত্রের হাতে পিতার মর্মান্তিক মুত্যু হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে  শনিবার উপজেলার সদগুনা ইউনিয়নের বিন্নাবাড়ী গ্রামে। মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সদগুনা ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ জুলফিকার আলী ভুট্ট।

পারিবারিক ও প্রতিবেশিরা জানান, উপজেলার সদগুনা ইউনিয়নের বিন্নাবাড়ী গ্রামের মোঃ জমিন মন্ডলের ছেলে মোঃ তোফাজ্জল হোসেন তোফা মন্ডল (৫৪) এর দুই স্ত্রী নিয়ে সংসার করতেছিলেন । গত ৭ জুলাই শুক্রবার রাতে ছোট স্ত্রীর ঘর থেকে বড় স্ত্রী রেজদা খাতুনের ঘরে রাত্রি যাপনের জন্য গেলে দু’ জনের মধ্যে বাকবিতান্ড শুরু হয় । বাকবিতান্ড চরম পর্যায় পৌছালে স্বামী ক্ষীপ্ত হয়ে স্ত্রী রেজদা খাতুনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে পায়ে আঘাত কবে। এ সময় তার চিৎকারে ছেলে মোঃ বাবু মন্ডল শাকিল (১৮) এগিয়ে আসে। মায়ের শরীরে রক্ত দেখে ছেলে পিতার পেটে ওই ধারালো অস্ত্র দিয়েই ২/৩ টা আঘাত করে মারাত্মক আহত করেন। পরে প্রতিবেশীরা এসে তাদেরকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য একই গাড়ীতে রাজশাহী মেডিকেল হাসপাতালে নিয়ে যান।
এ ঘটনায় ৮ জুলাই শনিবার রাতে রাজশাহী মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তোফাজ্জল হোসেন তোফা মন্ডল মারা যান। বর্তমানে ছেলে বাবু মন্ডল পলাতক রয়েছে ।
এ ব্যাপারে থানা অফিসার ইনচার্জ মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।