ঢাকা ০৩:০৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রশাসনকে ব্যবহার করে চলছে মাটি ব্যবসা,  প্রতিবাদে দলীয় প্রভাব

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৬:০৭:৪১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২ জুন ২০২৩
  • / ৩৪০ বার পড়া হয়েছে

জিয়াউর রহমান,নাটোর প্রতিনিধি:

নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলায়র মানিকপুর থেকে ইকুড়ী গ্রাম পর্যন্ত দাফিয়ে চলছে মাটি বাহি টাকটার যার একটি চালকেরও লাইসেন্স নেই, এ সকল ট্রাক্টর চলাচলের ফলে সরকারের কোটি কোটি টাকার রাস্তা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।এগুলো মাটি রাস্তায় পড়ে নানান দুর্ঘটনার সৃষ্টি হচ্ছে কোর্টের রায়কে অমান্য করে পুকুর সংস্কারের নামে চলছেন মাটি ব্যবসা নির্বিকার প্রশাসন। মাসোহারা আর প্রভাবশালীদের সাথে যোগ সাজশে ফসলী জমি ধ্বংসেও টনক নড়ছে না তাদের। সরকারী প্রকল্প মাটি যোগানোর অজুহাতে এসব পুকুর খনন করে বিভিন্ন স্থানে বিক্রি করা হচ্ছে এসব মাটি। সুশীল সমাজের দাবী,যেখানে আদালতের রায় বাস্তবায়ন করা প্রশাসনের কাজ। কিন্তু সেখানে এমন নিরবতা আইন লংঘনের সামিল।এমন কান্ড বন্ধে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন তারাও।

মাত্র কিছুদিন পরেই যে ফসল ঘরে ওঠার কথা ছিল তা বিনষ্ট করে উচ্চ আদালতের নির্দেশ অমান্য করে বড়াইগ্রামে এমনিভাবেই এস্কেভেটর দিয়ে চলছে পুকুর খনন । বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করে কোনভাবেই বন্ধ হচ্ছে না পুকুর খনন।সরকারি প্রকল্পের সরবরাহের অযুহাতে সাবাড় করে চলছে পুকুর সংস্করণ।প্রশাসনের কাজে মাটি সরবরাহের কথা বলেই চলছে এমন পুকুর সংস্করণ।এদিকে নানা কারণে এসব কর্মকান্ড বন্ধ না হওয়ায় কেউই আর প্রতিবাদ করতে সাহস পায়না। প্রশাসন লোক দেখানোর জন্য দুএকটা অভিযানে অর্থদন্ড করলেও বন্ধ হয়না রাস্তা দিয়ে টাকটার চলাচল। এতে করে ট্রলির চাকায় নষ্ট হচ্ছে পাকা সড়ক, ধুলাবালিতে শ্বাসজনিত রোগের প্রকোপ বাড়ছে। এছাড়া বৃষ্টি হলে ট্রলি থেকে পড়া মাটিতে যোগাযোগের অযোগ্য হয়ে পড়ে সড়কগুলোতে ঘটছে দূর্ঘটনা।এতো কিছুর পরও প্রশাসনের নিরবতাকে আদালত অবমাননার সামিল বলে মনে করেন সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা
সাধারন মানুষের প্রতিবাদে দলীয় প্রভাবের আতংকের সৃষ্টি হচ্ছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

প্রশাসনকে ব্যবহার করে চলছে মাটি ব্যবসা,  প্রতিবাদে দলীয় প্রভাব

আপডেট সময় : ০৬:০৭:৪১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২ জুন ২০২৩

জিয়াউর রহমান,নাটোর প্রতিনিধি:

নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলায়র মানিকপুর থেকে ইকুড়ী গ্রাম পর্যন্ত দাফিয়ে চলছে মাটি বাহি টাকটার যার একটি চালকেরও লাইসেন্স নেই, এ সকল ট্রাক্টর চলাচলের ফলে সরকারের কোটি কোটি টাকার রাস্তা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।এগুলো মাটি রাস্তায় পড়ে নানান দুর্ঘটনার সৃষ্টি হচ্ছে কোর্টের রায়কে অমান্য করে পুকুর সংস্কারের নামে চলছেন মাটি ব্যবসা নির্বিকার প্রশাসন। মাসোহারা আর প্রভাবশালীদের সাথে যোগ সাজশে ফসলী জমি ধ্বংসেও টনক নড়ছে না তাদের। সরকারী প্রকল্প মাটি যোগানোর অজুহাতে এসব পুকুর খনন করে বিভিন্ন স্থানে বিক্রি করা হচ্ছে এসব মাটি। সুশীল সমাজের দাবী,যেখানে আদালতের রায় বাস্তবায়ন করা প্রশাসনের কাজ। কিন্তু সেখানে এমন নিরবতা আইন লংঘনের সামিল।এমন কান্ড বন্ধে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন তারাও।

মাত্র কিছুদিন পরেই যে ফসল ঘরে ওঠার কথা ছিল তা বিনষ্ট করে উচ্চ আদালতের নির্দেশ অমান্য করে বড়াইগ্রামে এমনিভাবেই এস্কেভেটর দিয়ে চলছে পুকুর খনন । বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করে কোনভাবেই বন্ধ হচ্ছে না পুকুর খনন।সরকারি প্রকল্পের সরবরাহের অযুহাতে সাবাড় করে চলছে পুকুর সংস্করণ।প্রশাসনের কাজে মাটি সরবরাহের কথা বলেই চলছে এমন পুকুর সংস্করণ।এদিকে নানা কারণে এসব কর্মকান্ড বন্ধ না হওয়ায় কেউই আর প্রতিবাদ করতে সাহস পায়না। প্রশাসন লোক দেখানোর জন্য দুএকটা অভিযানে অর্থদন্ড করলেও বন্ধ হয়না রাস্তা দিয়ে টাকটার চলাচল। এতে করে ট্রলির চাকায় নষ্ট হচ্ছে পাকা সড়ক, ধুলাবালিতে শ্বাসজনিত রোগের প্রকোপ বাড়ছে। এছাড়া বৃষ্টি হলে ট্রলি থেকে পড়া মাটিতে যোগাযোগের অযোগ্য হয়ে পড়ে সড়কগুলোতে ঘটছে দূর্ঘটনা।এতো কিছুর পরও প্রশাসনের নিরবতাকে আদালত অবমাননার সামিল বলে মনে করেন সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা
সাধারন মানুষের প্রতিবাদে দলীয় প্রভাবের আতংকের সৃষ্টি হচ্ছে।