ঢাকা ০৯:১৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বনভূমি ডুবিয়ে কৃত্রিম হ্রদ তৈরি সাবেক সাংসদের পিএসসহ ১৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ১১:৪৪:৪৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ৩৩৭ বার পড়া হয়েছে

মুহাম্মদ নাছির উদ্দীন, লোহাগাড়া, চট্টগ্রাম, প্রতিনিধি:-

চট্টগ্রামের লোহাগাড়া-সাতকানিয়ার সীমান্তবর্তী প্রায় আড়াই হাজার একর বনভূমি ডুবিয়ে কৃত্রিম হ্রদ তৈরি করে মাছ চাষের ঘটনায় চট্টগ্রাম ১৫ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ডক্টর আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামউদ্দিন নদভীর একান্ত সচিব (পিএস) এরফানুল করিমসহ ১৫ জনের বিরুদ্ধে আদালতে ৪টি করছে বনবিভাগ।
আজ
মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারি) বন বিভাগের কর্মকর্তারা বাদী হয়ে চট্টগ্রাম আদালতে এই বিষয়ে পাঁচটি অভিযোগ জমা দিয়েছেন। অভিযোগগুলো মামলার প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

বনবিভাগের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ২৬(১ক) ও ৩৩(১ক) ধারায় আদালতে এই পাঁচটি মামলা করা হচ্ছে। মামলায় এরফানুল করিমের সঙ্গে তার অন্যতম সেনাপতি হিসেবে পরিচিত মঞ্জুর আহমদ ও নাসির উদ্দিনের নামও রয়েছে।

‘বনভূমি ডুবিয়ে মাছ চাষের বিষয়ে বনবিভাগের পক্ষ থেকে পাঁচটি অভিযোগ আদালতে দেওয়া হয়েছে। সেগুলো মামলার প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। বিভাগীয় বন কর্মকর্তার পক্ষে চুনতি রেঞ্জ কর্মকর্তা, বড়হাতিয়া বিট কর্মকর্তা ও চুনতি রেঞ্জের কর্মকর্তারা এসব মামলার বাদী হচ্ছেন বলে জানা গেছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

বনভূমি ডুবিয়ে কৃত্রিম হ্রদ তৈরি সাবেক সাংসদের পিএসসহ ১৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা

আপডেট সময় : ১১:৪৪:৪৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

মুহাম্মদ নাছির উদ্দীন, লোহাগাড়া, চট্টগ্রাম, প্রতিনিধি:-

চট্টগ্রামের লোহাগাড়া-সাতকানিয়ার সীমান্তবর্তী প্রায় আড়াই হাজার একর বনভূমি ডুবিয়ে কৃত্রিম হ্রদ তৈরি করে মাছ চাষের ঘটনায় চট্টগ্রাম ১৫ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ডক্টর আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামউদ্দিন নদভীর একান্ত সচিব (পিএস) এরফানুল করিমসহ ১৫ জনের বিরুদ্ধে আদালতে ৪টি করছে বনবিভাগ।
আজ
মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারি) বন বিভাগের কর্মকর্তারা বাদী হয়ে চট্টগ্রাম আদালতে এই বিষয়ে পাঁচটি অভিযোগ জমা দিয়েছেন। অভিযোগগুলো মামলার প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

বনবিভাগের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ২৬(১ক) ও ৩৩(১ক) ধারায় আদালতে এই পাঁচটি মামলা করা হচ্ছে। মামলায় এরফানুল করিমের সঙ্গে তার অন্যতম সেনাপতি হিসেবে পরিচিত মঞ্জুর আহমদ ও নাসির উদ্দিনের নামও রয়েছে।

‘বনভূমি ডুবিয়ে মাছ চাষের বিষয়ে বনবিভাগের পক্ষ থেকে পাঁচটি অভিযোগ আদালতে দেওয়া হয়েছে। সেগুলো মামলার প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। বিভাগীয় বন কর্মকর্তার পক্ষে চুনতি রেঞ্জ কর্মকর্তা, বড়হাতিয়া বিট কর্মকর্তা ও চুনতি রেঞ্জের কর্মকর্তারা এসব মামলার বাদী হচ্ছেন বলে জানা গেছে।