ঢাকা ০৮:১৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
পাঁচবিবিতে কোকতারা আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে জানালার গ্রিল ভেঙ্গে দুধর্ষ চুরি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রাক্টর দূর্ঘটনায় নিহত ২ পাঁচবিবিতে বুড়াবুড়ির মাজারে ২৫তম বাৎসরিক ওয়াজ মাহফিলের প্রস্তুতি সভা হিলি সীমান্তে দুই বাংলার আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হরিপুরে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত পাঁচবিবিতে নির্বাচনী মাঠে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মোছাঃ রেবেকা সুলতানা বিরামপুরে সমতল ভূমিতে বসবাসরত ৩৫০ ক্ষুদ্র নৃ- গোষ্ঠীর মাঝে বিনামূল্যে মুরগি বিতরণ পাঁচবিবিতে আবু হোসাইন হত্যা মামলায় মা-ছেলেসহ ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড পাঁচবিবিতে বন্ধুত্বের মিলন মেলা-৯০ অনুষ্ঠিত হিলিতে দিনব্যাপি পণ্য প্রদর্শর্নী ও পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত

বিএনপির আন্দোলনের হাট ভেঙে গেছে : তথ্যমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ১১:৪৬:১১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১০ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • / ৩৪৬ বার পড়া হয়েছে

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বিএনপির আন্দোলনের হাট ভেঙে গেছে। দলটির নেতাদের দম ফুরিয়ে গেলেও ষড়যন্ত্র থামেনি।

শনিবার (৯ সেপ্টেম্বর) বিকেলে রাজধানীর মোহাম্মদপুর টাউন হল চত্বরে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ আয়োজিত শান্তি সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে তারা ড. ইউনূসের ওপর ভর করেছিল। বিভিন্ন সময় বিভিন্নজনের ওপর ভর করা বিএনপি কখন যে কবিরাজদের কাছে যায়, সেটাই দেখার বিষয়। বিএনপি তাদের মিত্রদের নিয়ে দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চায়। তারা ২০১৩, ১৪, ১৫ সালের মতো আবারও আগুনসন্ত্রাস, মানুষ ও গাড়ি পোড়ানো, সম্পত্তিতে আগুন দেওয়ার অজুহাত তৈরির জন্য আন্দোলন-আন্দোলন খেলা খেলছে। সে কারণে সরকারি দল হিসেবে আমাদের দায়িত্ব দেশে কেউ যাতে শান্তিশৃঙ্খলা বিনষ্ট করতে না পারে সে জন্য জনগণের পাশে থাকা। এ জন্যই আমাদের শান্তি সমাবেশ।

তিনি বলেন, গত বছরের ডিসেম্বরে বিএনপি নয়াপল্টনের পার্টি অফিসের সামনের রাস্তায় সমাবেশের জেদ ধরেছিল। এ জন্য তারা রাস্তায় নাশকতা শুরু করেছিল। গুলশানের বাসায় থাকা দণ্ডিত বেগম খালেদা জিয়ার নির্দেশেই নাকি ১০ ডিসেম্বর থেকে দেশ চলবে। তারা এমন বলেছিল। এরপর তাদের অফিস থেকে পুলিশ তাজা বোমা, দুই লাখের বেশি পানির বোতল, বস্তা বস্তা চাল-ডাল উদ্ধারের পর তারা সমাবেশ করতে গেল গোলাপবাগ গরুর হাটে। তারপর থেকে তারা বিদেশিদের কাছে ধর্ণা দেয়। আর প্রতি মাসেই বলে আওয়ামী লীগের দিন শেষ। এই করতে করতে তাদের আন্দোলনের হাট এখন ভেঙে গেছে। মির্জা ফখরুল সাহেবসহ নেতাদের দম ফুরিয়ে গেছে। কিন্তু তাদের ষড়যন্ত্র থামেনি। নির্বাচন ভণ্ডুলের চক্রান্ত থামেনি।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, মির্জা ফখরুল সাহেব বলেছেন তিনি গ্রেপ্তারের আশঙ্কায় আছেন। আমরা কাউকে গ্রেপ্তার করতে চাই না। কিন্তু চোরের মন পুলিশ পুলিশ। তিনি যদি নাশকতা, হামলা বা কোনো অপরাধের পরিকল্পনা করেন, তাহলে নিজেই আশঙ্কা করতে পারেন। কারণ, আমরা গ্রেপ্তার করতে না চাইলেও অপরাধের পরিকল্পনাকারী ও অপরাধীদের পুলিশ ছেড়ে দেবে না। এ সব কারণে নেতাকর্মীদের সতর্ক থাকতে হবে। দেশ ও মানুষের যে উন্নয়ন হয়েছে তাতে আগামী নির্বাচনেও বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা জনগণের ভোটে বিজয় অর্জন করে প্রধানমন্ত্রী হবেন। আওয়ামী লীগ রাজপথের দল, রাজপথে ছিলাম, আছি, থাকব।

মোহাম্মদপুর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যক্ষ এম এ সাত্তারের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, ঢাকা মহানগর উত্তর সভাপতি শেখ বজলুর রহমান, সহসভাপতি সাদেক খান এমপি, সাধারণ সম্পাদক এস এম মান্নান কচি, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আজিজুল হক রানা প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

বিএনপির আন্দোলনের হাট ভেঙে গেছে : তথ্যমন্ত্রী

আপডেট সময় : ১১:৪৬:১১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১০ সেপ্টেম্বর ২০২৩

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বিএনপির আন্দোলনের হাট ভেঙে গেছে। দলটির নেতাদের দম ফুরিয়ে গেলেও ষড়যন্ত্র থামেনি।

শনিবার (৯ সেপ্টেম্বর) বিকেলে রাজধানীর মোহাম্মদপুর টাউন হল চত্বরে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ আয়োজিত শান্তি সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে তারা ড. ইউনূসের ওপর ভর করেছিল। বিভিন্ন সময় বিভিন্নজনের ওপর ভর করা বিএনপি কখন যে কবিরাজদের কাছে যায়, সেটাই দেখার বিষয়। বিএনপি তাদের মিত্রদের নিয়ে দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চায়। তারা ২০১৩, ১৪, ১৫ সালের মতো আবারও আগুনসন্ত্রাস, মানুষ ও গাড়ি পোড়ানো, সম্পত্তিতে আগুন দেওয়ার অজুহাত তৈরির জন্য আন্দোলন-আন্দোলন খেলা খেলছে। সে কারণে সরকারি দল হিসেবে আমাদের দায়িত্ব দেশে কেউ যাতে শান্তিশৃঙ্খলা বিনষ্ট করতে না পারে সে জন্য জনগণের পাশে থাকা। এ জন্যই আমাদের শান্তি সমাবেশ।

তিনি বলেন, গত বছরের ডিসেম্বরে বিএনপি নয়াপল্টনের পার্টি অফিসের সামনের রাস্তায় সমাবেশের জেদ ধরেছিল। এ জন্য তারা রাস্তায় নাশকতা শুরু করেছিল। গুলশানের বাসায় থাকা দণ্ডিত বেগম খালেদা জিয়ার নির্দেশেই নাকি ১০ ডিসেম্বর থেকে দেশ চলবে। তারা এমন বলেছিল। এরপর তাদের অফিস থেকে পুলিশ তাজা বোমা, দুই লাখের বেশি পানির বোতল, বস্তা বস্তা চাল-ডাল উদ্ধারের পর তারা সমাবেশ করতে গেল গোলাপবাগ গরুর হাটে। তারপর থেকে তারা বিদেশিদের কাছে ধর্ণা দেয়। আর প্রতি মাসেই বলে আওয়ামী লীগের দিন শেষ। এই করতে করতে তাদের আন্দোলনের হাট এখন ভেঙে গেছে। মির্জা ফখরুল সাহেবসহ নেতাদের দম ফুরিয়ে গেছে। কিন্তু তাদের ষড়যন্ত্র থামেনি। নির্বাচন ভণ্ডুলের চক্রান্ত থামেনি।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, মির্জা ফখরুল সাহেব বলেছেন তিনি গ্রেপ্তারের আশঙ্কায় আছেন। আমরা কাউকে গ্রেপ্তার করতে চাই না। কিন্তু চোরের মন পুলিশ পুলিশ। তিনি যদি নাশকতা, হামলা বা কোনো অপরাধের পরিকল্পনা করেন, তাহলে নিজেই আশঙ্কা করতে পারেন। কারণ, আমরা গ্রেপ্তার করতে না চাইলেও অপরাধের পরিকল্পনাকারী ও অপরাধীদের পুলিশ ছেড়ে দেবে না। এ সব কারণে নেতাকর্মীদের সতর্ক থাকতে হবে। দেশ ও মানুষের যে উন্নয়ন হয়েছে তাতে আগামী নির্বাচনেও বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা জনগণের ভোটে বিজয় অর্জন করে প্রধানমন্ত্রী হবেন। আওয়ামী লীগ রাজপথের দল, রাজপথে ছিলাম, আছি, থাকব।

মোহাম্মদপুর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যক্ষ এম এ সাত্তারের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, ঢাকা মহানগর উত্তর সভাপতি শেখ বজলুর রহমান, সহসভাপতি সাদেক খান এমপি, সাধারণ সম্পাদক এস এম মান্নান কচি, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আজিজুল হক রানা প্রমুখ।