ঢাকা ০৪:২৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজধানীতে বাবা-ছেলের মরদেহ উদ্ধার

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৮:১৩:৪৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ৩২২ বার পড়া হয়েছে

রাজধানীর বাড্ডা থানাধীন বেরাইদে এলাকায় বাবা-ছেলের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) রাতে বেরাইদের জেনে পাড়ার মুবাক্কারের বাসার নিচতলা থেকে তাদের মরদেহ উদ্ধার করে বাড্ডা থানা পুলিশ ।

প্রাথমিকভাবে পুলিশ ধারণা করছে, ছেলে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন, আর হার্ট অ্যাটাকে বাবার মৃত্যু হয়েছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মর্গে পাঠানো হয়েছে।

গুলশান বিভাগের বাড্ডার জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার রাজন কুমার সাহা গণমাধ্যমকে বলেন, রাতে মোবাইলে কোনো সাড়া না পেয়ে পাশের মুদি দোকানদার হারুন বাসায় এসে দরজা বন্ধ পেয়ে ডাকাডাকি করেন। তবে কোনো সাড়া না পেয়ে স্থানীয়দের সহায়তায় দরজা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করেন। ভেতরে ছেলে রাকিব হোসেনকে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান, বিছানায় বাবা গিয়াসউদ্দিনের মৃত অবস্থায় দেখতে পান তারা। নিহত রাকিব হোসেন পেশায় ইলেকট্রিক মিস্ত্রি। আর বাবা গিয়াসউদ্দিন পেশায় স্কুল শিক্ষক।

রাজেন কুমার সাহা বলেন, উপস্থিত জনতা বিষয়টি থানায় জানালে বাড্ডা থানার এসআই সাহাবুদ্দিন মুন্সী দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করেন। তদন্তের প্রাথমিক পর্যায়ে আমাদের মনে হয়েছে যে, ছেলে রাকিব হোসেন গলা ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। সেটি দেখার পর বাবা গিয়াস উদ্দিন হার্ট অ্যাটাকে মারা যান।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

রাজধানীতে বাবা-ছেলের মরদেহ উদ্ধার

আপডেট সময় : ০৮:১৩:৪৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

রাজধানীর বাড্ডা থানাধীন বেরাইদে এলাকায় বাবা-ছেলের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) রাতে বেরাইদের জেনে পাড়ার মুবাক্কারের বাসার নিচতলা থেকে তাদের মরদেহ উদ্ধার করে বাড্ডা থানা পুলিশ ।

প্রাথমিকভাবে পুলিশ ধারণা করছে, ছেলে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন, আর হার্ট অ্যাটাকে বাবার মৃত্যু হয়েছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মর্গে পাঠানো হয়েছে।

গুলশান বিভাগের বাড্ডার জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার রাজন কুমার সাহা গণমাধ্যমকে বলেন, রাতে মোবাইলে কোনো সাড়া না পেয়ে পাশের মুদি দোকানদার হারুন বাসায় এসে দরজা বন্ধ পেয়ে ডাকাডাকি করেন। তবে কোনো সাড়া না পেয়ে স্থানীয়দের সহায়তায় দরজা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করেন। ভেতরে ছেলে রাকিব হোসেনকে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান, বিছানায় বাবা গিয়াসউদ্দিনের মৃত অবস্থায় দেখতে পান তারা। নিহত রাকিব হোসেন পেশায় ইলেকট্রিক মিস্ত্রি। আর বাবা গিয়াসউদ্দিন পেশায় স্কুল শিক্ষক।

রাজেন কুমার সাহা বলেন, উপস্থিত জনতা বিষয়টি থানায় জানালে বাড্ডা থানার এসআই সাহাবুদ্দিন মুন্সী দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করেন। তদন্তের প্রাথমিক পর্যায়ে আমাদের মনে হয়েছে যে, ছেলে রাকিব হোসেন গলা ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। সেটি দেখার পর বাবা গিয়াস উদ্দিন হার্ট অ্যাটাকে মারা যান।