ঢাকা ০৩:৩৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
পাঁচবিবিতে বুড়াবুড়ির মাজারে ২৫তম বাৎসরিক ওয়াজ মাহফিলের প্রস্তুতি সভা হিলি সীমান্তে দুই বাংলার আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হরিপুরে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত পাঁচবিবিতে নির্বাচনী মাঠে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মোছাঃ রেবেকা সুলতানা বিরামপুরে সমতল ভূমিতে বসবাসরত ৩৫০ ক্ষুদ্র নৃ- গোষ্ঠীর মাঝে বিনামূল্যে মুরগি বিতরণ পাঁচবিবিতে আবু হোসাইন হত্যা মামলায় মা-ছেলেসহ ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড পাঁচবিবিতে বন্ধুত্বের মিলন মেলা-৯০ অনুষ্ঠিত হিলিতে দিনব্যাপি পণ্য প্রদর্শর্নী ও পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত পাঁচবিবিতে রেলওয়ের সম্পত্তি লীজকে কেন্দ্র করে সংবাদ সম্মেলন পাঁচবিবিতে বণিক সমিতির ৫ম সাধারণ সভায় আহবায়ক কমিটি ঘোষনা একাংশের আপত্তি

রানীশংকৈলে ১মাসের ব‍্যবধানে পেয়াজের দাম দ্বিগুন বৃদ্ধি

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ১১:৪৫:৪১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ মে ২০২৩
  • / ৩৫৫ বার পড়া হয়েছে

এ কে আজাদ, রানীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও)প্রতিনিধিঃ

ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল উপজেলার পৌরশহরের বৃহৎ বাজার পাইকারী বাজার শিবদিঘী কাঁচাবাজারের মধ্যে পেঁয়াজের বাজারে আগুন দাম। সপ্তাহখানেক এর ব্যবধানে হঠাৎ পেঁয়াজের দাম লাফিয়ে কেজি প্রতি ২০ থেকে ২৫ টাকা বেশি দরে বিক্রি হচ্ছে। আবার অনেক পেঁয়াজ ব্যবসায়ীর দোকানে সাধারণ ক্রেতাদের দরদামে বাকবিতণ্ড করতে দেখা গেছে।

এখানে বাজার করতে আসা এক দিনমজুর ক্রেতা আক্ষেপ করে বলেন, ‘এই বাজারে গত সপ্তাহে ৫৫ টাকা দরে পেঁয়াজ ক্রয় বিক্রয় করা হয়।
অথচ চলতি সপ্তাহে আজ পেঁয়াজ নিতে এসে অবাক হচ্ছি। প্রতি কেজি পেয়াজ ৮০ টাকা দরে বিক্রি করছেন খুচরা ব্যবসায়ীরা। এমন অবস্থা শুরু হলে কপালে দুঃখ ছাড়া কিছু নেই।

পৌর শহরের আজাদ বলেন’ আজ পেঁয়াজ ৮০ টাকায় কিনেছি। বাজারে জিনিসপত্রের দাম এখন হাতের নাগালের বাইরে।
কিন্তু মধ‍্যবিক্ত ও নিম্ন আয়ের মানুষজন হতাশায় দিনাতিপাত করছে।

সচেতন মহল বলছেন, উৎপাদন ও মজুদ বিবেচনায় দেশে এ মুহূর্তে পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধির কোনো কারণ নেই। কিন্তু কী কারণে বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে তা সরকারকে খতিয়ে দেখা দরকার ।

নির্ভরযোগ্য একাধিক সূত্রে জানা গেছে, পাইকারির সিন্ডিকেটে দাম লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। সামনে কোরবানির ঈদ। হয়ত এ মৌসুমকে কাজে লাগাতে চায় এই ব্যবসায়ীরা।

বাজার ঘুরে দেখা গেছে, শাক সবজির দাম কিছুটা কম থাকলেও পেঁয়াজের দাম লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। খোদ খুচরা পেঁয়াজ ব্যবসায়ীরাও কল্পনা করতে পারেনি কেন এই পেঁয়াজের দাম বাড়ন্ত।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, চলতি বছর ২ লাখ ৪১ হাজার ৯০০ হেক্টর জমিতে পেঁয়াজের আবাদ করা হয়েছে। পেঁয়াজ উৎপাদন হয়েছে ৩৪ লাখ টনের বেশি। বর্তমানে মজুত আছে ১৮ লাখ ৩০ হাজার টন। কিন্তু উপযুক্ত সংরক্ষণের অভাবে বা প্রতিকূল পরিবেশের কারণে ৩০-৩৫ শতাংশ পেঁয়াজ নষ্ট হয়ে যায়। ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

রানীশংকৈলে ১মাসের ব‍্যবধানে পেয়াজের দাম দ্বিগুন বৃদ্ধি

আপডেট সময় : ১১:৪৫:৪১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ মে ২০২৩

এ কে আজাদ, রানীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও)প্রতিনিধিঃ

ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল উপজেলার পৌরশহরের বৃহৎ বাজার পাইকারী বাজার শিবদিঘী কাঁচাবাজারের মধ্যে পেঁয়াজের বাজারে আগুন দাম। সপ্তাহখানেক এর ব্যবধানে হঠাৎ পেঁয়াজের দাম লাফিয়ে কেজি প্রতি ২০ থেকে ২৫ টাকা বেশি দরে বিক্রি হচ্ছে। আবার অনেক পেঁয়াজ ব্যবসায়ীর দোকানে সাধারণ ক্রেতাদের দরদামে বাকবিতণ্ড করতে দেখা গেছে।

এখানে বাজার করতে আসা এক দিনমজুর ক্রেতা আক্ষেপ করে বলেন, ‘এই বাজারে গত সপ্তাহে ৫৫ টাকা দরে পেঁয়াজ ক্রয় বিক্রয় করা হয়।
অথচ চলতি সপ্তাহে আজ পেঁয়াজ নিতে এসে অবাক হচ্ছি। প্রতি কেজি পেয়াজ ৮০ টাকা দরে বিক্রি করছেন খুচরা ব্যবসায়ীরা। এমন অবস্থা শুরু হলে কপালে দুঃখ ছাড়া কিছু নেই।

পৌর শহরের আজাদ বলেন’ আজ পেঁয়াজ ৮০ টাকায় কিনেছি। বাজারে জিনিসপত্রের দাম এখন হাতের নাগালের বাইরে।
কিন্তু মধ‍্যবিক্ত ও নিম্ন আয়ের মানুষজন হতাশায় দিনাতিপাত করছে।

সচেতন মহল বলছেন, উৎপাদন ও মজুদ বিবেচনায় দেশে এ মুহূর্তে পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধির কোনো কারণ নেই। কিন্তু কী কারণে বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে তা সরকারকে খতিয়ে দেখা দরকার ।

নির্ভরযোগ্য একাধিক সূত্রে জানা গেছে, পাইকারির সিন্ডিকেটে দাম লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। সামনে কোরবানির ঈদ। হয়ত এ মৌসুমকে কাজে লাগাতে চায় এই ব্যবসায়ীরা।

বাজার ঘুরে দেখা গেছে, শাক সবজির দাম কিছুটা কম থাকলেও পেঁয়াজের দাম লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। খোদ খুচরা পেঁয়াজ ব্যবসায়ীরাও কল্পনা করতে পারেনি কেন এই পেঁয়াজের দাম বাড়ন্ত।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, চলতি বছর ২ লাখ ৪১ হাজার ৯০০ হেক্টর জমিতে পেঁয়াজের আবাদ করা হয়েছে। পেঁয়াজ উৎপাদন হয়েছে ৩৪ লাখ টনের বেশি। বর্তমানে মজুত আছে ১৮ লাখ ৩০ হাজার টন। কিন্তু উপযুক্ত সংরক্ষণের অভাবে বা প্রতিকূল পরিবেশের কারণে ৩০-৩৫ শতাংশ পেঁয়াজ নষ্ট হয়ে যায়। ।