ঢাকা ০২:৩৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হিলি পোর্ট বাজারে পাইকারী বাজারে পেঁয়াজের দাম কেজিতে কমলো ৬ থেকে ৮ টাকা

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৫:৪৬:৪৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৮ অগাস্ট ২০২৩
  • / ৩৬৫ বার পড়া হয়েছে

মোঃ রাকিব হাসান ডালিম
হাকিমপুর হিলি প্রতিনিধি

রপ্তানিতে ভারত সরকারের বেঁধে দেওয়া ৪০ শতাংশ শুল্কারোপের রেশ কাটতে না কাটতেই আবারও শুল্কারোপের করায় দিনাজপুরে হিলি স্থলবন্দর পেঁয়াজের দাম বেড়ে ছিলো।একদিনের ব্যবধানে পাইকারী পোর্ট বাজারে পেঁয়াজের দাম কেজিতে কমেছে ৬ থেকে ৮ টাকা। ব্যবসায়ীরা বলছেন,আমদানি বৃদ্ধি পেলে দাম আরও কমে আসবে।
১৯ আগস্ট থেকে ভারত সরকার রপ্তানিতে ৪০ শতাংশ শল্কারোপ করায় বাংলাদেশের আমদানিকারকেরা প্রতি মেট্রিক টন পেঁয়াজের এলসিতে (ঋণপত্র) ১৫০ থেকে ২০০ মার্কিন ডলার পরিশোধ করতেন। নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী,এলসি মূল্য যত টাকাই থাকুক, রপ্তানিকারকদের এখন থেকে প্রতি মেট্রিক টন পেঁয়াজে ৩২৫ মার্কিন ডলার শুল্ক পরিশোধ করতে হবে। তবে ভারত সরকারের কোনো লিখিত নির্দেশনা পায়নি ভারতের শুল্কস্টেশন কর্তৃপক্ষ। এ জন্য তারা রপ্তানিকারকদের কাছে নতুন করারোপের ব্যাপারে আন্ডারটেকিং নিয়ে ট্রাক পারাপারের অনুমতি দিচ্ছে। যাতে লিখিত নির্দেশনা পেলে নতুন শুল্কায়নের অর্থ সমন্বয় করতে পারে।
বাংলাহিলি কাস্টমস সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের বন্দর বিষয়ক সম্পাদক রবিউল ইসলাম সুইট বলেন,ভারত সরকার পেঁয়াজ রপ্তানিতে ৪০ শতাংশ শুল্কারোপের ফলে বাংলাদেশের বাজারে প্রতি কেজি পেঁয়াজের মূল্য ৫ থেকে সাড়ে ৬ টাকা বেড়েছে। এরই মধ্যে ভারতীয় রপ্তানিকারকরা মুঠোফোনে জানিয়েছে, ভারত সরকার শুল্কায়নের হার বাড়াচ্ছে, যেটি গতকাল রোববার থেকে বাস্তবায়ন হওয়ার কথা ছিলো। আর এটি হলে দেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম কেজি প্রতি প্রায় ১১ টাকা বেড়ে যাবে।
আমদানিকারক ও ব্যবসায়ীরা জানান,বন্দর দিয়ে ভারত থেকে কয়েক সপ্তাহ ধরে প্রতিদিন গড়ে ৪৫ থেকে ৫০টি ট্রাকে পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে। ভারত সরকার শুল্কারোপের খবরে আমদানি কমেছে।
গতকাল রোববার সন্ধ্যায় পোর্টে ইন্দু জাতের পেঁয়াজ পাইকারীতে বিক্রি হয়েছে ৬০ টাকা কেজি। আর নাসিক জাতের পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ৬৫ টাকা দরে। আজ সোমবার ইন্দুর জাতের সেই পেঁয়াজ ৫৪ টাকায় এবং নাসিক জাতের পেঁয়াজ ৫৭ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।
হিলি বাজারের পেঁয়াজের খুচরা ব্যবসায়ী আবু তাহের বলেন,বাজারে ভালোমানের নাসিক জাতের পেঁয়াজ বিক্রি হয় না বললেই চলে।এর দামও বেশি। আজ সোমবার সকাল থেকে ইন্দু জাতের নিম্নমানের পেঁয়াজ ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করছি।
হিলি কাষ্টমস সূত্রে জানা গেছে, গেলো ৯ দিনে ভারতীয় ৬৫২ ট্রাকে ১২ হাজার ৭ শত ৯৩ মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে এই বন্দর দিয়ে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

হিলি পোর্ট বাজারে পাইকারী বাজারে পেঁয়াজের দাম কেজিতে কমলো ৬ থেকে ৮ টাকা

আপডেট সময় : ০৫:৪৬:৪৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৮ অগাস্ট ২০২৩

মোঃ রাকিব হাসান ডালিম
হাকিমপুর হিলি প্রতিনিধি

রপ্তানিতে ভারত সরকারের বেঁধে দেওয়া ৪০ শতাংশ শুল্কারোপের রেশ কাটতে না কাটতেই আবারও শুল্কারোপের করায় দিনাজপুরে হিলি স্থলবন্দর পেঁয়াজের দাম বেড়ে ছিলো।একদিনের ব্যবধানে পাইকারী পোর্ট বাজারে পেঁয়াজের দাম কেজিতে কমেছে ৬ থেকে ৮ টাকা। ব্যবসায়ীরা বলছেন,আমদানি বৃদ্ধি পেলে দাম আরও কমে আসবে।
১৯ আগস্ট থেকে ভারত সরকার রপ্তানিতে ৪০ শতাংশ শল্কারোপ করায় বাংলাদেশের আমদানিকারকেরা প্রতি মেট্রিক টন পেঁয়াজের এলসিতে (ঋণপত্র) ১৫০ থেকে ২০০ মার্কিন ডলার পরিশোধ করতেন। নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী,এলসি মূল্য যত টাকাই থাকুক, রপ্তানিকারকদের এখন থেকে প্রতি মেট্রিক টন পেঁয়াজে ৩২৫ মার্কিন ডলার শুল্ক পরিশোধ করতে হবে। তবে ভারত সরকারের কোনো লিখিত নির্দেশনা পায়নি ভারতের শুল্কস্টেশন কর্তৃপক্ষ। এ জন্য তারা রপ্তানিকারকদের কাছে নতুন করারোপের ব্যাপারে আন্ডারটেকিং নিয়ে ট্রাক পারাপারের অনুমতি দিচ্ছে। যাতে লিখিত নির্দেশনা পেলে নতুন শুল্কায়নের অর্থ সমন্বয় করতে পারে।
বাংলাহিলি কাস্টমস সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের বন্দর বিষয়ক সম্পাদক রবিউল ইসলাম সুইট বলেন,ভারত সরকার পেঁয়াজ রপ্তানিতে ৪০ শতাংশ শুল্কারোপের ফলে বাংলাদেশের বাজারে প্রতি কেজি পেঁয়াজের মূল্য ৫ থেকে সাড়ে ৬ টাকা বেড়েছে। এরই মধ্যে ভারতীয় রপ্তানিকারকরা মুঠোফোনে জানিয়েছে, ভারত সরকার শুল্কায়নের হার বাড়াচ্ছে, যেটি গতকাল রোববার থেকে বাস্তবায়ন হওয়ার কথা ছিলো। আর এটি হলে দেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম কেজি প্রতি প্রায় ১১ টাকা বেড়ে যাবে।
আমদানিকারক ও ব্যবসায়ীরা জানান,বন্দর দিয়ে ভারত থেকে কয়েক সপ্তাহ ধরে প্রতিদিন গড়ে ৪৫ থেকে ৫০টি ট্রাকে পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে। ভারত সরকার শুল্কারোপের খবরে আমদানি কমেছে।
গতকাল রোববার সন্ধ্যায় পোর্টে ইন্দু জাতের পেঁয়াজ পাইকারীতে বিক্রি হয়েছে ৬০ টাকা কেজি। আর নাসিক জাতের পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ৬৫ টাকা দরে। আজ সোমবার ইন্দুর জাতের সেই পেঁয়াজ ৫৪ টাকায় এবং নাসিক জাতের পেঁয়াজ ৫৭ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।
হিলি বাজারের পেঁয়াজের খুচরা ব্যবসায়ী আবু তাহের বলেন,বাজারে ভালোমানের নাসিক জাতের পেঁয়াজ বিক্রি হয় না বললেই চলে।এর দামও বেশি। আজ সোমবার সকাল থেকে ইন্দু জাতের নিম্নমানের পেঁয়াজ ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করছি।
হিলি কাষ্টমস সূত্রে জানা গেছে, গেলো ৯ দিনে ভারতীয় ৬৫২ ট্রাকে ১২ হাজার ৭ শত ৯৩ মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে এই বন্দর দিয়ে।