ঢাকা ০৫:৩৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

হিলি সীমান্তে দর্শনার্থীদের মিলন মেলায় পরিণত

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৫:০৪:৩৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর ২০২৩
  • / ৩৩০ বার পড়া হয়েছে

 

হাকিমপুর হিলি প্রতিনিধি

শারদীয় দূর্গাপুজা উপলক্ষে দিনাজপুরের হিলি সীমান্তের চেকপোস্ট শুন্য রেখায় (ভারত ও বাংলাদেশ) দুই বাংলার দশনার্থীদের মিলন মেলায় পরিণত হয়েছে।
আজ মঙ্গলবার বিজয়াদশমীতে হিলি সীমান্তের শুন্য রেখায় দু বাংলার শত শত হিন্দু ধর্মালম্বীদের আগমন ঘটে। তাদের কেউবা পুজা দেখতে, আবার কেউবা তাদের আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে দেখা করতে এসেছে হিলিতে।
শারদীয় দূর্গাপুজা উপলক্ষে হিলি সীমান্তের শুন্য রেখায় দু বাংলার শত শত হিন্দু ধর্মালম্বীরা দেশের বিভিন্নস্থান থেকে প্রাইভেট কার,মাইক্রোবাস ও পিকআপ,মোটরসাইকেল,চার্জার ভ্যান, অটো ভ্যান করে দর্শনার্থী ও ভক্তরা আসছেন হিলি সীমান্তের জিরো পয়েন্টে।অপর দিকে ভারতের অভ্যন্তরেও বিভিন্নস্থান থেকে দর্শনার্থীরা এসেছেন ভারতের জিরোপয়েন্ট। এদিকে সীমান্তে কাঁটার তারের বেড়া এবং বিজিবি ও বিএসএফের কঠোর মনোভাবের কারণে এপার থেকে ওপারে যেতে না পারলেও শুন্য রেখায় দুই পাশে দাঁড়িয়ে ভারত ও বাংলাদেশের দর্শনার্থীরা একে অপরকে দেখছে ও ছবি তুলে দুঃখটাকে আনন্দে পরিণত করছে।
হিলি সীমান্তে আসা দর্শনার্থীরা জানান,সীমান্তের কাঁটা তারের বেড়া দিয়ে দুই বাংলাকে ভাগ করে দিলেও আমাদের মনকে তো আর ভাগ করতে পারেনি,আগে তো দুই বাংলা একই ছিল। তাই ভালোবাসার টানে, প্রাণের টানে, নাড়ির টানে তারা ছুটে এসেছেন সীমান্তের শুন্য রেখায়।এছাড়াও তাদের অনেক আত্মীয় স্বজন রয়েছে ভারতে। কাটাতারের ফাঁক দিয়ে দুর থেকে আত্মীয় স্বজনকে দেখছেন।
দর্শনার্থীরা আরও জানান,যদি একটু ভিতরে এক দিনের জন্য যেতে দিতো তাহলে ভিতরে গিয়ে প্রতিমা দেখা যেতো , আত্মীয়-স্বজনের সাথে দেখা করা যেতো এবং মন খুলে কথা বলো যেতো। এক দিনের জন্য হলেও এপার বাংলা ওপার বাংলার মানুষেরা যেন প্রতিমা দেখতে পারে সেই জন্য দু’দেশের সরকারের কাছে দাবি জানাচ্ছি আমরা।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

হিলি সীমান্তে দর্শনার্থীদের মিলন মেলায় পরিণত

আপডেট সময় : ০৫:০৪:৩৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর ২০২৩

 

হাকিমপুর হিলি প্রতিনিধি

শারদীয় দূর্গাপুজা উপলক্ষে দিনাজপুরের হিলি সীমান্তের চেকপোস্ট শুন্য রেখায় (ভারত ও বাংলাদেশ) দুই বাংলার দশনার্থীদের মিলন মেলায় পরিণত হয়েছে।
আজ মঙ্গলবার বিজয়াদশমীতে হিলি সীমান্তের শুন্য রেখায় দু বাংলার শত শত হিন্দু ধর্মালম্বীদের আগমন ঘটে। তাদের কেউবা পুজা দেখতে, আবার কেউবা তাদের আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে দেখা করতে এসেছে হিলিতে।
শারদীয় দূর্গাপুজা উপলক্ষে হিলি সীমান্তের শুন্য রেখায় দু বাংলার শত শত হিন্দু ধর্মালম্বীরা দেশের বিভিন্নস্থান থেকে প্রাইভেট কার,মাইক্রোবাস ও পিকআপ,মোটরসাইকেল,চার্জার ভ্যান, অটো ভ্যান করে দর্শনার্থী ও ভক্তরা আসছেন হিলি সীমান্তের জিরো পয়েন্টে।অপর দিকে ভারতের অভ্যন্তরেও বিভিন্নস্থান থেকে দর্শনার্থীরা এসেছেন ভারতের জিরোপয়েন্ট। এদিকে সীমান্তে কাঁটার তারের বেড়া এবং বিজিবি ও বিএসএফের কঠোর মনোভাবের কারণে এপার থেকে ওপারে যেতে না পারলেও শুন্য রেখায় দুই পাশে দাঁড়িয়ে ভারত ও বাংলাদেশের দর্শনার্থীরা একে অপরকে দেখছে ও ছবি তুলে দুঃখটাকে আনন্দে পরিণত করছে।
হিলি সীমান্তে আসা দর্শনার্থীরা জানান,সীমান্তের কাঁটা তারের বেড়া দিয়ে দুই বাংলাকে ভাগ করে দিলেও আমাদের মনকে তো আর ভাগ করতে পারেনি,আগে তো দুই বাংলা একই ছিল। তাই ভালোবাসার টানে, প্রাণের টানে, নাড়ির টানে তারা ছুটে এসেছেন সীমান্তের শুন্য রেখায়।এছাড়াও তাদের অনেক আত্মীয় স্বজন রয়েছে ভারতে। কাটাতারের ফাঁক দিয়ে দুর থেকে আত্মীয় স্বজনকে দেখছেন।
দর্শনার্থীরা আরও জানান,যদি একটু ভিতরে এক দিনের জন্য যেতে দিতো তাহলে ভিতরে গিয়ে প্রতিমা দেখা যেতো , আত্মীয়-স্বজনের সাথে দেখা করা যেতো এবং মন খুলে কথা বলো যেতো। এক দিনের জন্য হলেও এপার বাংলা ওপার বাংলার মানুষেরা যেন প্রতিমা দেখতে পারে সেই জন্য দু’দেশের সরকারের কাছে দাবি জানাচ্ছি আমরা।