ঢাকা ০৭:০৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
পাঁচবিবিতে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দু-পক্ষের হট্টগোল জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে নেশার ইঞ্জেকশনসহ ৩ জন মাদকব্যবসায়ী গ্রেপ্তার হাকিমপুরে বসুন্ধরা শুভসংঘের বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন পাঁচবিবিতে মেসি ট্রাক্টরের সাথে মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-১ পাঁচবিবিতে ২৭ ঘন্টা পর নদীতে ডুবে নিখোঁজ মাদ্রাসা ছাত্রের লাশ উদ্ধার পাঁচবিবিতে তেল ও পাথরবাহী ২ ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে ২ জন আহত বিরামপুরে ২ দফা দাবি আদায়ে দিনাজপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কর্মবিরতি পাঁচবিবিতে প্রীতি ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত বিপদসীমার ওপরে তিস্তার পানি নকল কসমেটিকস উৎপাদন : ৭ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা সাড়ে ১৪ লাখ টাকা

কৃষিতে আধুনিক প্রযুক্তি প্রয়োগ করেছেন সরকার- প্রতিমন্ত্রী পলক

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০১:১০:০৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ মে ২০২৩
  • / ৩৯৮ বার পড়া হয়েছে

মো:আজিজুল হাকিম
সিংড়া,নাটোর,প্রতিনিধি

নাটোরর সিংড়া উপজেলায়  কৃষকদের মাঝে কৃষিযন্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্টিত হয়েছে। সেখানে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

প্রতিমন্ত্রী  প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্যে বলেন, বিগত সরকারের সময় সারের জন্য ২১ জন কৃষককে জীবন দিতে হয়েছে। কৃষিতে আধুনিক প্রযুক্তি প্রয়োগ করেছেন সরকার। সিংড়া উপজেলার ৬২ হাজার কৃষক পরিবার রয়েছে। তাদের বিনামূল্যে ব্যাংক একাউন্ট খুলে দিয়েছেন। বিনামূল্যে সার দিয়েছেন। বিদ্যুৎ দিয়েছেন।
গ্রামীণ অর্থনৈতিক উন্নয়ন ঘটেছে। গ্রামের জীবন যাত্রা উন্নতি ঘটেছে। গ্রাম কে উন্নয়নের কেন্দ্র বিন্দুতে পরিনত করেছেন। আমাদের সম্পদ কম হলেও জনশক্তি আমাদের সম্পদে পরিনত হয়েছে। কৃষকদের রক্ত, ঘামের বিনিময়ে এবং জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ রোল মডেল।

পলক এমপি আরো বলেন, আগে একটা জমির পর্চা নিতে কৃষকদের কত ঘুরতে হয়েছে। এখন অনলাইনে আবেদন করে কৃষকরা জমির কাগজপত্র পাচ্ছে। ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার, পৌর ডিজিটাল সেন্টারে মানুষ সেবা পাচ্ছে। ২০০ ডিজিটাল সেবা মানুষ অনলাইনে পাচ্ছে। কৃষকদের ঘরে ঘরে সার পৌছানোর ব্যবস্থা করেছেন। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, যোগাযোগ ব্যবস্থা, ইন্টারনেট সেবা গ্রামের মানুষ সহজে পেয়েছে। চলনবিলের মানুষ আগে উপজেলা সদরে আসতে ৩/৪ ঘন্টা লাগতো এখন ১৫/২০ মিনিটে আসতে পারে।
১৩৬ কিলোমিটার খাল খননে চলনবিলে কৃষকদের অনেক উন্নয়ন ঘটেছে।

পলক আরো বলেন, করোনাকালিন সময়ে কৃষকদের পাশে সরকার, জনপ্রতিনিধি, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী পাশে ছিলেন। তারা শ্রমিক সংকটে ধান কেটে দিয়েছেন। চলনবিলের কৃষকদের ৭০ শতাংশ কৃষি ভর্তূকির ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। আমাদের ইচ্ছে আছে জন্য উপায় বের করি।
সিংড়া উপজেলার ৫ লক্ষ মানুষ কৃষিতে সম্পৃক্ত। কৃষিতে যান্ত্রিককরণের কারনে কৃষকরা অনেক সুবিধা ভোগ করছে।
কৃষকদের ছেলে মেয়েরা এখন দেশের জন্যকাজ করছে। ফ্রিল্যান্সিং করছে। ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নের ফলে সকল ক্ষেত্রে দুর্নীতি, হয়রানী কমেছে। সরকার এখন স্মার্ট কৃষি ব্যবস্থা গড়ে তুলছে। আগামীর বাংলাদেশ হবে স্মার্ট বাংলাদেশ।

 

আল ইমরান উপজেলা ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী অফিসারের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন , কৃষিবিদ সেলিম রেজা অতিরিক্ত উপ পরিচালক (পদায়ন ঝিনাইদহ) , খন্দকার ফরিদ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা এছাড়াও আরো অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

কৃষিতে আধুনিক প্রযুক্তি প্রয়োগ করেছেন সরকার- প্রতিমন্ত্রী পলক

আপডেট সময় : ০১:১০:০৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ মে ২০২৩

মো:আজিজুল হাকিম
সিংড়া,নাটোর,প্রতিনিধি

নাটোরর সিংড়া উপজেলায়  কৃষকদের মাঝে কৃষিযন্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্টিত হয়েছে। সেখানে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

প্রতিমন্ত্রী  প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্যে বলেন, বিগত সরকারের সময় সারের জন্য ২১ জন কৃষককে জীবন দিতে হয়েছে। কৃষিতে আধুনিক প্রযুক্তি প্রয়োগ করেছেন সরকার। সিংড়া উপজেলার ৬২ হাজার কৃষক পরিবার রয়েছে। তাদের বিনামূল্যে ব্যাংক একাউন্ট খুলে দিয়েছেন। বিনামূল্যে সার দিয়েছেন। বিদ্যুৎ দিয়েছেন।
গ্রামীণ অর্থনৈতিক উন্নয়ন ঘটেছে। গ্রামের জীবন যাত্রা উন্নতি ঘটেছে। গ্রাম কে উন্নয়নের কেন্দ্র বিন্দুতে পরিনত করেছেন। আমাদের সম্পদ কম হলেও জনশক্তি আমাদের সম্পদে পরিনত হয়েছে। কৃষকদের রক্ত, ঘামের বিনিময়ে এবং জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ রোল মডেল।

পলক এমপি আরো বলেন, আগে একটা জমির পর্চা নিতে কৃষকদের কত ঘুরতে হয়েছে। এখন অনলাইনে আবেদন করে কৃষকরা জমির কাগজপত্র পাচ্ছে। ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার, পৌর ডিজিটাল সেন্টারে মানুষ সেবা পাচ্ছে। ২০০ ডিজিটাল সেবা মানুষ অনলাইনে পাচ্ছে। কৃষকদের ঘরে ঘরে সার পৌছানোর ব্যবস্থা করেছেন। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, যোগাযোগ ব্যবস্থা, ইন্টারনেট সেবা গ্রামের মানুষ সহজে পেয়েছে। চলনবিলের মানুষ আগে উপজেলা সদরে আসতে ৩/৪ ঘন্টা লাগতো এখন ১৫/২০ মিনিটে আসতে পারে।
১৩৬ কিলোমিটার খাল খননে চলনবিলে কৃষকদের অনেক উন্নয়ন ঘটেছে।

পলক আরো বলেন, করোনাকালিন সময়ে কৃষকদের পাশে সরকার, জনপ্রতিনিধি, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী পাশে ছিলেন। তারা শ্রমিক সংকটে ধান কেটে দিয়েছেন। চলনবিলের কৃষকদের ৭০ শতাংশ কৃষি ভর্তূকির ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। আমাদের ইচ্ছে আছে জন্য উপায় বের করি।
সিংড়া উপজেলার ৫ লক্ষ মানুষ কৃষিতে সম্পৃক্ত। কৃষিতে যান্ত্রিককরণের কারনে কৃষকরা অনেক সুবিধা ভোগ করছে।
কৃষকদের ছেলে মেয়েরা এখন দেশের জন্যকাজ করছে। ফ্রিল্যান্সিং করছে। ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নের ফলে সকল ক্ষেত্রে দুর্নীতি, হয়রানী কমেছে। সরকার এখন স্মার্ট কৃষি ব্যবস্থা গড়ে তুলছে। আগামীর বাংলাদেশ হবে স্মার্ট বাংলাদেশ।

 

আল ইমরান উপজেলা ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী অফিসারের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন , কৃষিবিদ সেলিম রেজা অতিরিক্ত উপ পরিচালক (পদায়ন ঝিনাইদহ) , খন্দকার ফরিদ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা এছাড়াও আরো অনেকে উপস্থিত ছিলেন।