ঢাকা ০৭:০১ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
পাঁচবিবিতে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দু-পক্ষের হট্টগোল জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে নেশার ইঞ্জেকশনসহ ৩ জন মাদকব্যবসায়ী গ্রেপ্তার হাকিমপুরে বসুন্ধরা শুভসংঘের বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন পাঁচবিবিতে মেসি ট্রাক্টরের সাথে মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-১ পাঁচবিবিতে ২৭ ঘন্টা পর নদীতে ডুবে নিখোঁজ মাদ্রাসা ছাত্রের লাশ উদ্ধার পাঁচবিবিতে তেল ও পাথরবাহী ২ ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে ২ জন আহত বিরামপুরে ২ দফা দাবি আদায়ে দিনাজপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কর্মবিরতি পাঁচবিবিতে প্রীতি ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত বিপদসীমার ওপরে তিস্তার পানি নকল কসমেটিকস উৎপাদন : ৭ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা সাড়ে ১৪ লাখ টাকা

রাস্তা পাকাকরণ কাজে দূর্নীতির বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে অভিযোগ

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৯:৩২:২৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০২৩
  • / ৩৫৩ বার পড়া হয়েছে

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:

সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার সদর ইউনিয়নের বাজিতপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনের কমিউনিটি ক্লিনিকের ১০০ ফুট পাকাকরণ কাজে অনিয়ম করেও বরাদ্ধের টাকা উত্তোলনের পায়তারা করছে স্থানীয় ইউপি সদস্যা নেহারুন বেগম। এব্যাপারে দোয়ারাবাজার প্রেসক্লাবের সহসভাপতি আবু সালেহ মো. আলাউদ্দিন সোমবার (২০ নভেম্বর) উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায় বাজিতপুর কমিউনিটি ক্লিনিকের ১০০ ফুট রাস্তা গ্রামবাসীর যাতায়তের সুবিধার্থে পাকাকরণ কাজে নানা অনিয়ম থাকলেও প্রকল্পের সভাপতি ইউপি সদস্যসা নেহারুন বেগম মুক্তিযুদ্ধার পুত্র বধুর দাপট খাটিয়ে সমূহ টাকা উত্তোলনের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। রাস্তার এহেন কাজে স্থানীয় জনগণের মধ্যে মিশ্র প্রতিকৃয়া বিরাজ করছে।এ ব্যাপারে বাজিতপুর পশ্চিম পাড়া জামে মসজিদের মোতাওয়াল্লি মোঃ মানিক মিয়া বলেন নেহারুন বেগম মেম্বারনী মে কাজ করেছে দোয়ারাবাজার উপজেলার মধ্যে এত খারাপ কাজ এত দুর্নীতি কেহ করে নাই । বাজিতপুর গ্রামের বিশিষ্ট শালিস ব্যক্তিত্ব মৌলানা মোঃ জালাল উদ্দিন বলেন নেহারুন বেগম মেম্বারনী কে আমি বার বার বলেছি আমাদের গ্রামের বহু দিনের কষ্টের ফসল একমাত্র কমিউনিটি ক্লিনিকের সামনের রাস্তা, সুন্দর ও মজবুত করে কাজ করলে গ্রাম বাসীর উপকারে আসবে,এ কথা শুনে মেম্বারনী উত্তেজিত হয়ে মুক্তিযোদ্ধার ছেলের বউ প্রভাব কটিয়ে গ্রাম তুলে অনেক গালাগালি করেন তার বি ডি ও আছে ,
এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আম্বিয়া আহমদ বলেন নেহারুন বেগম মেম্বারনীর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি, সঠিক তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত দোষীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যাবস্থা করা হবে , এ ব্যাপারে নেহারুন বেগম মেম্বারনী কে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন আমি দোয়ারাবাজার উপজেলার সদর ইউনিয়নের বাজিতপুর গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধার পুত্র বধু যে আমার বিরুদ্ধে নিউজ করবে আমি তার উপর মামলা করবো, গ্রাম তুলে গালি দেওয়ার কথা জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন গ্রামের মানুষের আরো গালি দিব এতে সাংবাদিকের কি।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

রাস্তা পাকাকরণ কাজে দূর্নীতির বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে অভিযোগ

আপডেট সময় : ০৯:৩২:২৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০২৩

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:

সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার সদর ইউনিয়নের বাজিতপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনের কমিউনিটি ক্লিনিকের ১০০ ফুট পাকাকরণ কাজে অনিয়ম করেও বরাদ্ধের টাকা উত্তোলনের পায়তারা করছে স্থানীয় ইউপি সদস্যা নেহারুন বেগম। এব্যাপারে দোয়ারাবাজার প্রেসক্লাবের সহসভাপতি আবু সালেহ মো. আলাউদ্দিন সোমবার (২০ নভেম্বর) উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায় বাজিতপুর কমিউনিটি ক্লিনিকের ১০০ ফুট রাস্তা গ্রামবাসীর যাতায়তের সুবিধার্থে পাকাকরণ কাজে নানা অনিয়ম থাকলেও প্রকল্পের সভাপতি ইউপি সদস্যসা নেহারুন বেগম মুক্তিযুদ্ধার পুত্র বধুর দাপট খাটিয়ে সমূহ টাকা উত্তোলনের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। রাস্তার এহেন কাজে স্থানীয় জনগণের মধ্যে মিশ্র প্রতিকৃয়া বিরাজ করছে।এ ব্যাপারে বাজিতপুর পশ্চিম পাড়া জামে মসজিদের মোতাওয়াল্লি মোঃ মানিক মিয়া বলেন নেহারুন বেগম মেম্বারনী মে কাজ করেছে দোয়ারাবাজার উপজেলার মধ্যে এত খারাপ কাজ এত দুর্নীতি কেহ করে নাই । বাজিতপুর গ্রামের বিশিষ্ট শালিস ব্যক্তিত্ব মৌলানা মোঃ জালাল উদ্দিন বলেন নেহারুন বেগম মেম্বারনী কে আমি বার বার বলেছি আমাদের গ্রামের বহু দিনের কষ্টের ফসল একমাত্র কমিউনিটি ক্লিনিকের সামনের রাস্তা, সুন্দর ও মজবুত করে কাজ করলে গ্রাম বাসীর উপকারে আসবে,এ কথা শুনে মেম্বারনী উত্তেজিত হয়ে মুক্তিযোদ্ধার ছেলের বউ প্রভাব কটিয়ে গ্রাম তুলে অনেক গালাগালি করেন তার বি ডি ও আছে ,
এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আম্বিয়া আহমদ বলেন নেহারুন বেগম মেম্বারনীর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি, সঠিক তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত দোষীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যাবস্থা করা হবে , এ ব্যাপারে নেহারুন বেগম মেম্বারনী কে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন আমি দোয়ারাবাজার উপজেলার সদর ইউনিয়নের বাজিতপুর গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধার পুত্র বধু যে আমার বিরুদ্ধে নিউজ করবে আমি তার উপর মামলা করবো, গ্রাম তুলে গালি দেওয়ার কথা জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন গ্রামের মানুষের আরো গালি দিব এতে সাংবাদিকের কি।